ঘরে বসে লক্ষ্য লক্ষ্য টাকা ইনকাম করার গোপন ৩ টি উপায়|গোপন টিপস যা কেউ শেয়ার করবে না|3 ways to earn money from home|secret tips of earning money that no one will share|

ঘরে বসেই অনলাইনে ইনকাম করার সবচেয়ে সহজ তিনটি উপায় সম্পর্কে আজকে আমরা জানবো। এই তিনটি উপায়ে আপনি আপনার জীবন পাল্টে ফেলতে পারেন। কোন রকমের ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই নিজের লাইফ এবং ক্যারিয়ার গড়ে তুলুন। 


গোপন টিপস যা কেউ শেয়ার করবে না|3 ways to earn money from home|secret tips of earning money that no one will share|
ঘরে বসে লক্ষ্য লক্ষ্য টাকা
 ইনকাম করার গোপন ৩টি উপায়


বর্তমান সময়ে চাকরি পাওয়াটা হয়ে গিয়েছে প্রায় অসম্ভব। জনসংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে চাকরি পাওয়ার হারও কমে যাচ্ছে। পাশাপাশি এখনকার যুবক-যুবতীরা চাকরি করতে অনাগ্রহী। সবাই চাই ঘরে বসেই যদি ইনকাম করা যেত তাহলে কতই না ভালো হতো। আর বর্তমান সময় যুবক-যুবতীরা অনেকটাই ইন্টারনেট নির্ভরশীল। এবং এই ইন্টারনেটকে কাজেই লাগিয়ে যদি মাসে ইনকাম করা যায় লক্ষ লক্ষ টাকা তাহলে তো আর কোন কথাই নেই। তবে অনেকেই এই ব্যাপারগুলো সম্পর্কে তেমন কিছুই জানে না। 


আসুন জেনে নেই ইন্টারনেট কিভাবে আপনার জীবন পাল্টে দিতে পারে। বর্তমান সময়ে যেহেতু যুবক যুবতীরা অনেক বেশি ইন্টারনেট নির্ভরশীল সেহেতু তারা চাইলেই তাদের এই সময়টাকে কাজে লাগিয়ে মাসে অনেক বেশি টাকা ইনকাম করতে পারে। তাই আমাদেরকে দেখতে হবে যে কি কি উপায় অবলম্বন করে আমরা অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারব। ঘরে বসেই নিজেকে কিভাবে যোগ্য করে তুলতে পারবো। 


নিজেকে একজন সবল এবং যোগ্য মানুষ করে তুলতে কেইবা না চায়? প্রত্যেক মানুষই চায় সে জীবনে কিছু না কিছু করুক। হোক সে ছেলে বা মেয়ে সবাই চায় তাদের নিজের হাত খরচের টাকাটুকু হলেও তারা যেন নিজেরা ইনকাম করতে পারে। আর একটা সময় গিয়ে দেখা যায় যে বাচ্চারা বা ছেলেমেয়েরা বাবা-মার কাছ থেকেও টাকা চায় না। তখন তাদের হাত খরচের জন্য হলো কিছু টাকার দরকার হয়। চাইলেই তারা এই টাকাগুলো অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারে শুধুমাত্র কিছু উপায় অবলম্বন করা দরকার। 


বর্তমান সময়ের এত প্রতিযোগিতার মাঝে নিজেকে স্বাবলম্বী করে তোলা আসলেই অনেকটা টাফ। তাই যে কোন শর্তেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করাটা অনেক বেশি জরুরী। কোন কিছুর পিছনে সব সময় লেগে থাকলে একসময় না একসময় তার সাফল্য আসবেই। এবং ব্যক্তি সফল অবশ্যই হবে। তাই একটা কাজের পেছনে মনোযোগ দিয়ে পরিশ্রম করা জরুরি। কোন কাজই ছোট বড় নয়। প্রত্যেক কাজেই রয়েছে সাফল্য। ছোট ছোট কাছ থেকে মানুষ বড় বড় কাজ করতে পারে। 


কথায় আছে:ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কণা, বিন্দু বিন্দু জল, গড়ে তোলে মহাদেশ সাগরতল। ছোট ছোট থেকেই চেষ্টা করে আস্তে আস্তে বড় বড় কাজ করতে হবে। প্রথমে অনেক বেশি চাইলে হবে না। আস্তে আস্তে করে জীবনে অ্যাচিভমেন্ট আনতে হবে। ঘরে বসেই প্র্যাকটিস করে অনলাইনে ইনকাম করার মাধ্যমে আস্তে আস্তে করে সেই ইনকাম অনেক বেশি বাড়ানো যায়। অনেক লোকে বাহিরে চাকরি করো এই টাকা ইনকাম করতে পারেনা যতটা না ঘরে বসে অনলাইনে ইনকাম করা যায়। 


আজকে আমি সবকিছু সহজ এবং এভেলেবেল তিনটা পদ্ধতি বলব যার মাধ্যমে আপনারা অনলাইনে ঘরে বসেই ইনকাম করতে পারবেন। এবং এই তিনটা পদ্ধতি সকলেই অবলম্বন করতে পারবেন। এই কাজগুলো অত্যন্ত সহজ এবং সবার দ্বারাই করা যাবে। একটা ব্যবহার করলে আপনারা আপনাদের গোল্ড এচিভ করতে পারবেন। হাত খরচ সহ পুরো সংসার চালাতে পারবেন তবে এর জন্য কিছু টেকনিক জানা দরকার যা আমরা শেয়ার করব। চলুন জেনে সেই তিনটি উপায় কি এবং কিভাবে আমরা ইনকাম করতে পারব অনলাইন থেকে।


নাম্বার এক:

সবচেয়ে জনপ্রিয় যে মাধ্যমটি অনলাইনে ইনকাম করার সেটি হল ফেসবুক। ফেসবুক সম্পর্কে জানেনা এমন মানুষ খুব কমই আছে ।পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি ইউজএবল অ্যাপের মধ্যে ২ নম্বর  হচ্ছে ফেসবুক।  এবং কমবেশি সবাই এই ফেসবুকের মাধ্যমে অনেক জনপ্রিয় হচ্ছে এবং এর মাধ্যমে তারা ইনকাম করছে ।এটি অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি মাধ্যম। এর মাধ্যমে আপনারা সহজে চাইলেই অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন। ফেসবুক যেহেতু আমরা দৈনন্দিন জীবনে অনেক বেশি ব্যবহার করে থাকি তাই এর মাধ্যমে ইনকাম করাটাও আমাদের জন্য অনেক সহজ হয়ে যাবে। আমাদের সবারই একটানা একটা ফেসবুক অ্যাকাউন্ট আছে। এখন আমরা জানবো ফেসবুক থেকে আপনারা কিভাবে ইনকাম করতে পারবেন ।এর অনেক অনেক উপায় আছে তবে আমি সবচেয়ে সহজ উপায়টাই আপনাদের সামনে তুলে ধরব। 


প্রথমে আপনার আপনার ফেসবুকে একটি পেজ খুলেন নিবেন যেটাতে আপনারা ভিডিও ক্রিয়েট করতে পারবেন। এ পেজ খোলাটা অনেক বেশি সহজ আপনারা শুধুমাত্র আপনাদের জিমেইল থেকেই এই পেজটা ক্রিয়েট করতে পারবেন। এ পেজ খোলা মাত্র ৫ মিনিটের ব্যাপার। এই পেজ খোলার পর আপনারা চাইলে বিভিন্ন ধরনের ব্লগ করতে পারেন বাহিরে গিয়ে। অনেকেই আছে যারা খাবার ভিডিও ব্লগ করে থাকে। আবার অনেকে বাহিরে ঘুরতে যাওয়ার ভিডিও ব্লগ করে থাকে।তবে অনেক মানুষরা যারা ঘরে বসেই ইনকাম করতে চায় তারা চাইলে মেকাপের ভিডিও এবং রান্নার ভিডিও করেও ছাড়তে পারে যেগুলোতে অনেক ভিউজ হয় ।এবং এই ভিউজগুলো থেকেই মূলত আপনার ইনকাম হবে। যদিও প্রথমে আপনাদেরকে কিছু সময় ইনকাম ছাড়া থাকতে হবে কারণ আপনাদের মনিটাইজ পেতে কিছু সময় লাগতে পারে। এবং একবার মনিটাইজ পেয়ে গেলে এবং ভিডিওতে যত ভিউজ হবে ততই আপনাদের ইনকাম হবে। একবার ইনকাম হওয়া শুরু হয়ে গেলে এবং ভিউস পেয়ে গেলে আপনারা অনেক কোম্পানির স্পনসর হিসেবেও কাজ করতে পারবেন যাতে করে আপনাদের ইনকাম ডাবল হয়ে যাবে। 


নাম্বার দুই:

youtube সম্পর্কে জানেনা এমন মানুষ হয়তো খুব কমই আছে। পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে ইউজেবল অ্যাপের মধ্যে তিন নাম্বার হচ্ছে ইউটিউব। এবং ইউটিউব ভিডিও দেখে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া অসম্ভব। সুতরাং যারা যারা ইউটিউব সম্পর্কে জানেন তারা হয়তো এইটাও জানেন যে ইউটিউব থেকে ইনকাম করা কত সহজ। ইউটিউবে নিজের একটি নিজস্ব চ্যানেল খুলে নিলেই কিন্তু আপনাদের ইনকামের ব্যবস্থা হয়ে যায়। একটা নিজস্ব চ্যানেল খুলতে ফেসবুকের মতই একটা শুধুমাত্র জিমেইল দরকার হয়। এবং ইউটিউবে ভিডিও ছাড়তে হয়।


 মাত্র তিন মিনিটের ভিডিও ছেড়ে কিন্তু আপনি চাইলে ইনকাম করতে পারেন ।আপনারা হয়তো জানেন ৩ মিনিটের ভিডিও করতে কিন্তু খুব বেশি একটা সময় লাগে না। এবং youtube খুবই অল্প সময় মনিটাইজ দিয়ে দেয় এবং মনিটাইজ পাওয়ার পর থেকেই কিন্তু ইউটিউবের ভিউজ থেকে আপনাদের ইনকাম হবে এবং বিভিন্ন ধরনের এড স্পন্সর করলে তখন তো আর কোন কথাই নেই। সেইখানে ইনকাম আপনাদের ডাবল হয়ে যাবে।আবার চাইলে আপনারা এই সমস্ত ভিডিওর মাঝখানে অনেক ধরনের ভিডিও বা চ্যানেলের স্পন্সর করে এমনকি অনেক ধরনের প্রোডাক্টের কন্সার্ট করেও ইনকাম করতে পারেন ।আর আপনারা জানলে অবাক হবেন ইউটিউব কিন্তু ভিডিওর ভিউজে সবচেয়ে বেশি টাকা দেয়। সুতরাং বুঝতেই পারছেন আপনারা চাইলে কত সহজেই ইউটিউব থেকে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারেন। বর্তমানে অনেক অনেক ফেমাস মানুষ রাও ইউটিউব থেকেই ফেমাস হয়েছেন এবং তারা লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছেন। 


নাম্বার তিন:

বর্তমানে ইনকাম করার সাথে জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং। অনেক মানুষরাই আছে যারা কিনা youtube এবং facebook এ নিজের ভয়েস এবং ভিডিও দিয়ে অভ্যস্ত নয়। তারা চাইলেই ফ্রিল্যান্সিং করে নিজের ক্যারিয়ার গঠন করতে পারেন। অনেক অনেক লোকেরাই এখন ফ্রিল্যান্সিং করে নিজের ক্যারিয়ার গঠন করে ফেলেছে। ছোট বড় সকল বয়সের মানুষরাই এখন নিজের পেশা হিসেবে ফ্রিল্যান্সিংকে বেছে নিয়েছে। মানুষ লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছে এই ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে এবং তাদের আন্ডারেও অনেক মানুষ কাজ করছে। যারা যারা এর সম্পর্কে জানেন না চলুন এই সম্পর্কে আমরা আরেকটু বিস্তারিত জেনে নেই। 


ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে এমন একটা কাজ যেটা আমরা ঘরে বসে অনলাইনেই করতে পারি। এর মাধ্যমে আমরা অনেক ধরনের কাজ করতে পারি। সব মানুষই সব বিষয় দক্ষ হতে পারে না। তাই অনেক মানুষরা নিজেদের পছন্দমত তাদের ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারকে গঠন করে নিয়েছে। ফ্রিল্যান্সিং বিভিন্ন ধরনের হতে পারে যেমন গ্রাফিক্স ডিজাইনিং, ওয়েব ডিজাইনিং ,ডিজিটাল মার্কেটিং, অ্যাপ ডেভেলপিং, ভিডিও এডিটিং ইত্যাদি ইত্যাদি। যে যেটাই ভালো সে সেটা নিয়ে নিজের ক্যারিয়ার গঠন করে নিয়েছে। অনেক শিক্ষিত মানুষরাও এখন ফ্রিল্যান্সিংকে নিজের পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছে। ফ্রিল্যান্সিং এর চাহিদা বর্তমানে অনেক বেশি। বলা যায় যে প্রত্যেক মানুষই এখন ফ্রিল্যান্সিং এর প্রতি যুগে আছে। তাই এক্ষুনি নিজের ক্যারিয়ার গঠন করার সুযোগ রয়েছে আপনারও। 

Post a Comment

0 Comments