জাওয়ান মুভি নিয়ে অবাক করা তথ্য| জাওয়ান মুভি ট্রেইলার এবং প্রিভিউ|interesting things about jawan movie preview|jawan movie| new movie trailer

 পাঠানোর পর জাওয়ানের চমক নিয়ে আসলো শাহরুখ খান। তার ৫৭ বছর বয়স পেরিয়ে দেওয়ার পর এইরকম চমক দেখে সবাই অবাক। চার বছর পর শাহরুখ খানের নতুন মুভির এইরকম আসা হয়ত কেউ করছিল না। কি এমন আছে এই ছবিতে চলুন জেনে নেই। 


জাওয়ান মুভির ট্রেইলারেই কাবু দর্শক
২ মিনিটের ট্রেইলারেই কাপিয়ে দিলো পুরা বিশ্ব


পাঠান মুভি ছিল শাহরুখ খানের করা বেস্ট একটা মুভি নায়িকা দীপিকা পাডুকোনের সাথে। আবার এই মুভিটাও যেইটার নাম জাওয়ান সেটাও হবে দীপিকা পাড়ুকোন এর সাথে তবে এইখানে শুধু দীপিকা পাডুকান ই না সাথে রয়েছে আরও অনেক নায়িকারাই।শাহরুখ খানের এই মুভিনে ভক্তদের মনে অনেক রকমেরই আশা আছে। আর বোঝা যাচ্ছে যে এই মুভি এ বছরের সবচেয়ে সেরা মুভি হবে। ট্রেইলার দেখেই পাগল সবাই। ডিরেক্টর ভাবছে যে ট্রেইলারি এত পাগল সবাই মুভি দেখলে কি অবস্থা হবে। 


দুই মিনিটের ট্রেইলারে পাগল অবস্থা ভক্তদের।হঠাৎই এই মুভির একটা পিক দিয়ে বলা হয় যে ,শাহরুখ খান ইস ব্যাক উইথ জওয়ান। আরো লেখা থাকে রাত সাড়ে দশটার প্রিভিউর জন্য সবাই তৈরি তো। এটা দেখেই ভক্তরা ভাবল যে এইটা আবার কি জিনিস আসতে যাচ্ছে শাহরুখ খানের। শুরু হয়ে যায় হট্টগোল। পুরা নেটের সবাই খুঁজতে থাকে শাহরুখ খানের প্রিভিউ কি হতে পারে? অবশেষে রাত দশটার পর দেখা যায় যে শাহরুখ খানের মুভি যাওয়া নেট ট্রেলার বের হয়েছে। ট্রেইলার দেখে তো রীতিমত ভক্তদের মাথায় হাত। 


হেটার্সরা ভেবেছিল পাঠান হয়তো ভাগ্যক্রমে অনেক হিট হয়ে গিয়েছে শাহরুখ খানের আর কোন মুভি হিট হবে না যেহেতু তার বয়সটা অনেক বেড়ে গিয়েছে। কিন্তু তাদের মুখে তালা দিতেই শাহরুখ খান নতুন মুভি যাওনের ট্রেইলার দেখিয়ে দিল। আর এই মুভি ট্রেইলার দেখেই মানুষের বুঝতে আর বাকি রইল না যে এই মুভি পাঠান মুভির বাপ। এই মুভি পাঠান মুভি থেকে দ্বিগুন ইনকাম করবে। মুভি ট্রেইলারে যেমন রয়েছে অ্যাকশন তেমন রয়েছে রোমান্টিক সিন আবার রয়েছে শাহরুখ খানের মজার মজার কিছু ডায়লগ। এক কথায় অসাধারণ এক সংমিশ্রণে তৈরি হচ্ছে জাওয়ান মুভি। 


ট্রেইলারে শাহরুখ খানের হিরো এবং ভিলেনের সাথে একশন, রোমান্টিকতা এবং বিভিন্ন ধরনের রূপ দেখা দিয়েছে। আসুন এই সম্পর্কে আরেকটু জেনে নেই। শাহরুখ খানের মুভি দিতে দেখা যাচ্ছে যে তিনি একদিকে বৃদ্ধ অভিনয় করেছেন এবং একদিকে ইয়াং অভিনয় করেছেন।এবং এমনও দেখা যাচ্ছে যে শাহরুখ খান ভিলেন এবং হিরোর অভিনয় দুইটা একসাথেই করেছেন । এখানে বোঝা যাচ্ছে যে শাহরুখ খানের নিজের সাথেই নিজের লড়াই হবে। সুতরাং ব্যাপারটা কিন্তু অনেক ইন্টারেস্টিং হতে যাচ্ছে। আর মুভির যে সিন এবং থিম এবং যে লুক দেখা গেছে তা দিয়ে বোঝা যাচ্ছে মুভিটা কত হাই কোয়ালিটির হতে যাচ্ছে। 


ধারণা করা হচ্ছে যে শাহরুখ খান নিজেই এখানে বাবা এবং ছেলের অভিনয় করবে। যে বয়স্ক লুক থাকবে তিনি হবে হিরো এবং যে ইয়াং লুক থাকবে তিনি হবে ভিলেন ।এইখানে শাহরুখ খান নিজেই নিজের সাথে যুদ্ধ করবেন। অনেকেই এইটা মনে করছেন যে শাহরুখ খানের ছেলে ইয়াং শাহরুখ খান বাবার বদলা নিতেই আসবে। এবং সে বাবার বদলা নিতে আসার পর বাবার ই সম্মুখীন হবে। আর সেই ইয়াং শাহরুখ খানের বিরুদ্ধে বাবা শাহরুখ খান হিরো হিসেবে লড়াই করবে। একদিকে ছোট শাহরুখ খান থাকবে ভিলেন হিসেবে আর বড় শাহরুখ খান থাকবে বাবা হিসেবে ।


সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে এই মুভিটি অনেক দেশ এই বিভিন্ন ভাষায় রিলিজ করা হবে ।শাহরুখ খানের অভিনয় এবং ডায়লগ গুলো মনোমুগ্ধকর। এইখানে দেখা যায় যে শাহরুখ খান বিভিন্ন ধরনের রূপ ধারণ করে। কখনো দেখা যায় তাকে রোমান্টিক গানে ডান্স করতেছে আবার কখনো দেখা যায় ভিলেনের রূপে খুবই সুন্দর সুন্দর ডায়লগ দিচ্ছে। এবং তার মুখের মাক্স পড়ার পর যে এক্সপ্রেশনটা সেটা ছিল সবচেয়ে ইউনিক। শাহরুখ খান সবসময়ই ইন্ডাস্ট্রিতে নতুন নতুন মুভি আমাদেরকে উপহার দিয়ে থাকে ।তার মুভি সব সময় অন্য মুভি থেকে আলাদা হয়ে থাকে ।


হলিউড মুভি একদিকে একের পর এক মুভি ফ্লপি হয়ে যাচ্ছে। অনেক বড় বড় অভিনেতারাও যে যে মুভিগুলো করছে তা ফ্লপি হচ্ছে । দেখা যাচ্ছে যে, যে সকল অভিনেতারাই অনেক বছর গ্যাপ দেওয়ার পর অভিনয় করছে তাদের মুভি তো চলছেই না বলা যায়। কিন্তু অপরদিকে শাহরুখ খান পাঠান মুভি করার পর এত হিট হয়ে গিয়েছে যা কিনা বলার পায়ে বাহিরে, এমনকি এরপর কিন্তু তিনি একটা দীর্ঘ সময়ের বিরতিও নিয়েছেন। এবং কাম ব্যাক করেছেন প্রায় চার বছর পরে। অনেকেই ধরে নিয়েছিল শাহরুখ খানের নতুন যে মুভি আসবে তা হয়তোবা আর হিট হবে না পাঠানের মত। কিন্তু হয়ে গেছে পুরোই উল্টো। পাঠানো হচ্ছে ওর ডাবলের ডাবল লাভ হবে জাওয়ান মুভিতে এই বলেই ধারণা করা হচ্ছে। 


পাঠান মুভিতে শাহরুখ খানের সাথে দীপিকার জোড়ি কিন্তু সবারই নজর কেড়েছে। তাদের জোরা সবসময়ই অনেক সুন্দর লাগে। এবং আমরা কিন্তু জাওয়ান মুভিতে ও দীপিকাকে দেখেছি। তাই অনেকেই ধারণা করছে যে এইবার  হয়তো মেইন হিরোইন দীপিকা পাড়ুকোন  হতে পারে শাহরুখ খানের সাথে।আর তাদের জুটি কিন্তু অনেক বেশি সুন্দর ।আর শুধুমাত্র তারাই না এইখানে কিন্তু অনেক তামিল অভিনেতা এবং অভিনেত্রীরা অভিনয় করেছেন। আর আমরা তো সবাই জানি শাহরুখ খান হচ্ছে কিং অফ হলিউড। সুতরাং তার ছবি আসবে আর জনগণ পাগল হবে না এটা কিন্তু মানা যায় না। শুধুমাত্র টেইলার দেখেই সব হলিউডের মানুষরা পাগল। শুধুমাত্র ভারতেরই না বরং আশেপাশের যে দেশগুলো আছে তারাও কিন্তু শাহরুখ খানের এই মুভির জন্য অপেক্ষা করছেন। 


বাবার প্রতিশোধ ছেলে নিতে আসবে আর সেইখানেই বাধা দেবে বাবা এই রকমই এই মুভিটা।আরো কয়েকজন অভিনেতা আছে যাদের কথার না বললেই নয় ।এদের অভিনয় হয় সবচেয়ে সুন্দর । এই মুভিতে আরো অভিনয় করেছে বিজয় সাধুপাতি। আর রয়েছে দীপিকা পাড়ুকোনের পাশাপাশি নয়ন তারা। যিনি অসাধারণ একজন অভিনেত্রী তার অভিনয় প্রশংসা না করলেই নয়। তিনি একজন তামিল অভিনেত্রী এবং তার অভিনয় প্রশংসা রয়েছে পুরো ভারত জুড়েই। একদিকে যেমন শাহরুখ খান অন্যদিকে তেমন দীপিকা পাডুকোন ও নয়ন তারার যে কম্বিনেশন তা একদম বেস্ট। 


শাহরুখ খানকে দেখানো হয়েছে একের পর এক ও এন্ট্রি তে। কখনো বা পুলিশ, কখনো বাহ হিরো,  কখনো বা ভিলেন ,কখনো বা কোন মিশনে ,আবার কখনো বা কোন ন্যাড়া মাথার ভয়ঙ্কর রূপে, আবার রয়েছে কমেডিয়ান ভিলেনের একটুখানি ঝলক । আর প্রত্যেকটা এন্ট্রি জোস কোন টাই কটা থেকে কম নয়। একটার পর  একটা ভিন্ন ক্যারেক্টারে অভিনয় করে তিনি সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন এবং দেখিয়ে দিয়েছেন তিনি আসলেই অভিনেতাদের গুরু। তার মুভির প্রশংসা করতে এখনো সবাই বাধ্য। 


সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে এইবার বাংলাদেশেও এই মুভিটি রিলিজ করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। বাংলাদেশী পরিচালক অনন্য মামুন ভাই এই মুভিটি রিলিজ করার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন।আর এই মুভিটি রিলিজ হবে আগামী সাতই সেপ্টেম্বর ।আর বাংলাদেশেও যেন মুভিটি রিলিজ করা হয় তার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে দেওয়া হচ্ছে। শুধুমাত্র ইন্ডিয়াতেই না বাংলাদেশেও কিন্তু অনেক ভক্ত রয়েছে শাহরুখ খানের। অনন্য মামুন কিন্তু বাংলাদেশে অনেক ঝড়ঝাপড়ার পর পাঠান মুভিটাও রিলিজ দিয়েছিলেন। এবার জওয়ানের পালা। চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন এই মুভিটাও যেন বাংলাদেশের রিলিজ করা যায়। পাঠান মুভিটি কিন্তু রিলিজ হওয়ার প্রায় তিন থেকে চার মাস পর অনেক কষ্ট করে বাংলাদেশে আনা হয়। বলা যায় যে তিন থেকে চার মাস পর বাংলাদেশের রিলিজ হয় পাঠান মুভি।তবে এইবার চেষ্টা চালানো হচ্ছে যেন বাংলাদেশে ভারতের টাইম এই রিলিজ করা হয় জাওয়ান মুভিটি। অর্থাৎ বাংলাদেশের ৭ই সেপ্টেম্বর জাওয়ান মুভি রিলিজ করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সুতরাং যারা কিনা শাহরুখ খানের ভক্ত আছেন তারা হয়তোবা এবার একই সাথে যাওয়ার মুভিটি দেখতে পারবেন আর কে কে এই মুভিটি দেখতে চান তারাও জানান?

Post a Comment

0 Comments